মানুষের পাশে দাঁড়াতে পদ-পদবি লাগে না: নূর আলী

লিখেছেন editor

আমি বঙ্গবন্ধুর ডাকে এবং বাংলাদেশের প্রতি ভালোবাসাকে বুকে ধারণ করে যুদ্ধ করেছি। দেশ স্বাধীন হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ গঠিত হয়। তখন থেকেই এ দলের প্রতি দুর্বল ছিলাম। আমার কোনো পদ-পদবি নেই। কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকারের যে কোনো ক্রান্তিকালে নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছি। তাই আমি বলতে চাই- মানুষের পাশে দাঁড়াতে কোনো পদ-পদবি লাগে না, শুধু প্রয়োজন আন্তরিকতা।’

ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে গত ৪ আগস্ট বুধবার কর্মহীনদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন ইউনিক গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহা. নূর আলী। বাংলাদেশ ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের সহযোগিতায় এবং ঢাকা জেলা প্রশাসনের বাস্তবায়নে দুই হাজার পরিবারের মাঝে এই খাদ্যসামগ্রী দেয়া হয়।

নূর আলী বলেন, ‘করোনার প্রভাব বেড়ে যাওয়ায় দেশে এখন লকডাউন চলছে। ফলে অনেক পেশাজীবী শ্রমিক বেকার হয়ে পড়েছে। দরিদ্র এসব মানুষের পাশে দাঁড়াতে বাংলাদেশের সব ব্যাংকের প্রতি আহŸান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তারই ধারাবাহিকতায় আমি প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগবিষয়ক উপদেষ্টা এবং ঢাকা-১ আসনের সংসদ সদস্য সালমান এফ রহমানের সঙ্গে কথা বলি। মূলত তারই নির্দেশনায় ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের সহযোগিতায় এবং ঢাকা জেলা প্রশাসনের বাস্তবায়নে আজ আপনাদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে। আমি যতদিন বেঁচে আছি বাংলাদেশের যে কোনো দুর্যোগ বা ক্রান্তিকালে দেশের পাশে থাকব।’

ইউনিক গ্রুপের এমডি বলেন, ‘আমি যখন ২০০১ সালে জাতীয় নির্বাচনে অংশ নিই, তখন পশ্চিম অঞ্চলের জনগণ আমার কাছে বেড়িবাঁধ নির্মাণের দাবি করে। সেই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে তৎকালীন পানিসম্পদমন্ত্রী আবদুর রাজ্জাককে আমার নেতৃত্বে চারবার এ অঞ্চলে এনে কাশিয়াখালী বাঁধটি নির্মাণ করি। তখন টাকার অভাবে কাজটি বন্ধ হয়ে যায়। পরে আমার নিজের টাকায় ওই বাঁধের নির্মাণকাজ শেষ করি। এরপর যখন বিএনপি ক্ষমতায় আসে ঠিকাদার তাদের টাকা তুলে নেয়। তারা আমাকে আর কোনো টাকা ফেরত দেয়নি। এ ছাড়া নবাবগঞ্জ টু হেমায়েতপুর যে সুন্দর রাস্তাটি দেখতে পাচ্ছেন, সেই রাস্তাও কিন্তু স্যাঙ্কশন হয়ে বাতিল হয়ে যায়। আমি দুদিন পরে আওয়ামী লীগের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমানের বাসায় গিয়ে তারই সহধর্মিণী আইভি রহমানের সমর্থনে রাস্তাটি পুনরায় স্যাঙ্কশন করাই। এ তথ্যগুলো আপনাদের অনেকেরই অজানা।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. ইলিয়াস মেহেদী, নবাবগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাসির উদ্দিন আহমেদ ঝিলু, দোহার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন, নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এইচ সালাউদ্দিন মনজু, সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) অরুণ কৃষ্ণ পাল, নবাবগঞ্জ থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম শেখ, ইস্টার্ন ব্যাংকের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর আহমেদ শাহিন, কোম্পানি সেক্রেটারি মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, হেড অব কমিউনিকেশন জিয়াউল করিম, নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্‌বায়ক মিজানুর রহমান ভূইয়া কিসমত, যুগ্ম আহ্‌বায়ক দেয়ান আওলাদ হোসেন, ড. শাফিল উদ্দিন মিয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জালাল উদ্দিন। আরও উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ইব্রাহিম খলিল, আবেদ হোসেন, তপন মোল্লা, জলিল বেপারী, দেয়ান তুহিনুর রহমান প্রমুখ

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

You may also like

মন্তব্য করুন